প্রাকৃতিক সম্পদ

খনিজ সম্পদ

 

তিতাস গ্যাসক্ষেত্র

 

দেশের বৃহত্তম গ্যাসক্ষেত্রগুলির মধ্যে একটি এবং বর্তমান সময় পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ গ্যাস উৎপাদনকারী ক্ষেত্র । ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় অবস্থিত এই গ্যাসক্ষেত্রটি ১৯৬২ সালে পাকিস্তান শেল অয়েল কোম্পানি আবিষ্কার করে ।  ২০০০ সাল পর্যন্ত এখানে ১৪ টি কূপ খনন করা হয়েছে । ৬৪ বর্গ কিলোমিটার ব্যাপী বিস্তৃত এই ক্ষেত্রটির ভূ-গঠন গম্বুজাকৃতির । গ্যাস উৎপাদিত বালুকণাগুলির স্তর অধিকাংশই ২,৬১৬ মিটার থেকে ৩১২৪ মিটার গভীরতার মধ্যে । তিতাস গ্যাসক্ষেত্রের মোট অনুমিত মজুত প্রায় ৪.১৩ ট্রিলিয়ন ঘনফুট যার মধ্যে উত্তোলনযোগ্য মজুত ২.১ ট্রিলিয়ন ঘনফুট । ২০০০ সালের শেষ পর্যন্ত এই গ্যাসক্ষেত্র থেকে মোট ১.৭২ টিসিএফ গ্যাস উত্তোলন করা হয়েছে যা মোট উত্তোলনযোগ্য মজুতের প্রায় ৭৫ ভাগ ।

 

সালদা নদী গ্যাসক্ষেত্র

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় অবস্থিত । ১৯৯৬ সালে বাপেক্স গ্যাসক্ষেত্রটি খনন করে যার গভীরতা ২৫১২ মিটার । বর্তমানে এই গ্যাসক্ষেত্রটি থেকে গ্যাস উৎপাদন করা হচ্ছে ।

 

গ্যাস উৎপাদন :

 

তিতাস গ্যাস ক্ষেত্র ৪৪৩৮ মি:লি: ঘনফুট

 

সালদা নদী গ্যাস ক্ষেত্র ১৩৪ মিলি: ঘনফূট


গ্যাস মজুদ ও উৎপাদন (বিলিয়ন ঘনফুট)

 

নাম

আবিষ্কার

মওজুদ নিরূপন

উত্তোলনযোগ্য

এ যাবৎ উৎপাদন

অবশিষ্ট উত্তোলনযোগ্য

তিতাস

১৯৬২

২০০১

৫১২৭

২৪৬৮.৭

২৬৫৮.৮

সালদা নদী

১৯৯৬

১৯৯৬

১১৬.১

৪৩.৭

৭২.৪

মেঘনা

১৯৯০

১৯৯২

১১৯.৬

৩৪.৮

৮৪.৮