দর্শনীয় স্থান

নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
কোল্লাপাথর শহীদ সমাধিস্থল ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । কসবা উপজেলার দক্ষিণে ১০কিঃমিঃ দুরে ভারতীয় সীমান্তের সন্নিকটে বায়েক ইউনিয়নের কোল্লপাথর গ্রামে ।
লক্ষীপুর শহীদ সমাধিস্থল কসবা উপজেলা সদর থেকে মাত্র ৩কিঃমিঃ উত্তর পূর্বে গোপীনাথপুর ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে কসবা উপজেলা সদর থেকে মাত্র ৩কিঃমিঃ উত্তর পূর্বে গোপীনাথপুর ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে ।
কালভৈরব ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে রিক্সা যোগে যাওয়া যায় । মেড্ডা
ফারুকী পার্কের স্মৃতিস্থম্ভ ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে রিক্সা অথবা অটোরিক্সা যোগে যাওয়া যায় । অবকাশ অফিসার্স কোয়ার্টার এ
সৌধ হীরন্ময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে রিক্সা অথবা অটোরিক্সা যোগে যাওয়া যায় । কাউতলী
হাতীর পুল ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । সরাইল থানার বারিউরা নামক বাজারের প্রায় একশত গজ দূরে
কেল্লা শহীদ মাজার কাউতলী থেকে লোকাল সিএনজি যোগে যাওয়া যায় । আখাউড়ার খড়মপুরে
গঙ্গাসাগর দিঘী ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । গঙ্গাসাগর
উলচাপাড়া মসজিদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । উলচাপাড়া গ্রামে
কাজী মাহমুদ শাহ (রহ) মাজার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে রিক্সা নিয়ে যাওয়া যায় । কাজী পাড়া
ছতুরা শরীফ ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । কসবা উপজেলার ছতুরা গ্রামে
নাটঘর মন্দির নবীনগর থেকে রিক্সা করে যাওয়া যায় । নবীনগর থানার নাটঘর গ্রামে
বিদ্যাকুট সতীদাহ মন্দির নবীনগর থেকে রিক্সা করে যাওয়া যায় । নবীনগর উপজেলার ইতিহাস প্রসিদ্ধ বিদ্যাকুট গ্রামে
কচুয়া মাজার নাসিরনগর থেকে নৌকা দিয়ে চাতলপাড় বাজার....পশ্চিম দিকে পায়ে হেটে কচুয়া মাজার, সরাইল থেকে নৌকা দিয়ে চাতলপাড়.....চাতলপাড় থেকে কচুয়া, ভৈরব থেকে নৌকা দিয়ে চাতলপাড়, লাখাই থেকে নৌকা দিয়ে চাতলপাড় চাতলপাড় ইউনিয়ন
জয়কুমার জমিদার বাড়ী বুড়িশ্বর থেকে পায়ে হেটে মাত্র ১০ মিনিটে ঐ জমিদার বাড়ীতে যাওয়া যায়৤ এছাড়া বুড়িশ্বর ইউনিয়নের যেকোন জায়গা থেকে যানবাহন দ্বারা যাওয়া যায়৤ শুধু গংগানগর থেকে নৌ পথে যেতে হয়৤ বুড়িশ্বর গ্রামের উত্তর পাশে একেবারে শেস ‍সিমান্তে এই বাড়ি অবস্থিত৤
আশুগঞ্জ মেঘনা নদীর পার আশুগঞ্জ গোল চত্তর থেকে ১০টাকা রিক্সা ভাড়া করে যাওয়া যায় । এছাড়াও ৫ মিনিট হাটলেই উক্ত স্থানে যাওয়া যায় । আশুগঞ্জ নাটাল এর পশ্চিম দিক
হাতিরপুল বাংলাদেশের যে কোন প্রান্ত থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিশ্বরোড মোড় এসে সিএনজি যোগে সরাসরি আসা যায়। উপজেলা চত্বর থেকে সিএনজি যোগে যাওয়া যায়। সরাইল উপজেলার বারিউড়া নামক স্থানে অবস্থি।
আরিফাইল মসজিদ বাংলাদেশের যে কোন প্রান্ত থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিশ্বরোড মোড় এসে সিএনজি যোগে সরাসরি আসা যায় । উপজেলা চত্বর থেকে রিক্সা যোগে কিংবা পায়ে হেটেও যাওয়া যায় । দক্ষিণ আরিফাইল, সরাইল
হাটখোলা মসজিদ বা আরফান নেছার মসজিদ বাংলাদেশের যে কোন প্রান্ত থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিশ্বরোড মোড় এসে সিএনজি যোগে সরাসরি আসা যায় । উপজেলা চত্বর থেকে রিক্সা যোগে কিংবা পায়ে হেটেও যাওয়া যায় । সরাইল বাজার
গুনয়াউক বাগান বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । গুনিয়াউক ইউনিয়ন ,নাসিরনগর, ব্রাহ্মণবাড়িযা
হযরত ডেংগু শাহ( র:) এর মাজার শরীফ নাসিরনগর ও মাধবপুর উপজেলা হইতে সিএনজি যোগ। নাসিরনগর উপজেলার অন্তগর্ত হরিপুর গ্রামে।
কাজী মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে বাস/সিএনজি করে ঢাকা সিলেট মহাসড়কের পাশে ইসলামপুরে কাজী মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে আসা যায়। ইসলামপুর
আয়েত উল্লাহ শাহ এর মাজার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । বিটঘর, পানিশ্বর, সরাইল।
শ্রী শ্রী কালাচাঁদ বাবাজীর মন্দির ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । বিটঘর, পানিশ্বর, সরাইল।
টিঘর জামাল সাগর দীঘি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । টিঘর, পানিশ্বর, সরাইল।
মুক্তিযোদ্ধে নিহত ৭১ জন শহীদের নামে নির্মিত স্মৃতিসৌধ ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । বিটঘর, পানিশ্বর, সরাইল।
ধর্মতীর্থ পটিয়া নদী পাড় (ধরন্তীঘাট) ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । ধরন্তী ঘাট, কালীকচ্ছ, সরাইল।
কালিকচ্ছ নন্দীপাড়াস্থ দয়াময় আনন্দধাম। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । কালীকচ্ছ, সরাইল।
সলিমগঞ্জ কলেজ নবীনগর হতে সি এন জি বা মটর বাইক এবং বর্ষাকালে নৌকা যোগে । সলিমগঞ্জ, নবীনগর, ব্রাহ্মনবাড়িয়া।
আব্দুর রহমান শাহের মাজার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । শাহজাদাপুর, সরাইল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া্।
এমপি টিলা নবীনগর হতে লঞ্চে আসা যাওয়া করা যায় এবং নরসিংদী হতে লঞ্চে আসা যাওয়া করা যায় । ধরাভাঙ্গা, নবীনগর, ব্রাহ্মনবাড়িয়া।
শ্রীঘর মঠ শ্রীঘর মঠ- উক্ত মঠটি আনুমানিক ১৯৪১-৪২ খ্রীঃ জমিদার রাজ চন্দ্র নাথ নির্মান করেন । এই পরিবারের অলঙ্গ নাহাকে বৃটিশ সরকার রায় বাহাদুর হিসাবে খেতাব দিয়েছিলেন । উক্ত জমিদার পরিবারের উদ্যোগে শ্রীঘর করুনাময়ী দাতব্য চিকিৎসালয়টি স্থাপিত হয় । বর্তমানে এটি শ্রীঘর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র হিসাবে বিদ্যমান আছে । শ্যামগ্রাম ইউনিয়ন
আহাম্মদপুর মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিসৌধ নবীনগর হতে লাউরফতেপুর সি এন জি মাধ্যমে যাওয়া যায়। লাউরফতেপুর ইউনিয়ন
বাড়িখোলা তঞ্জু মৌলভির মাজার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । লাউর ফতেপুর ইউনিয়ন
গনিশাহ মাজার শরীফ যোগাযোগ ব্যবস্থাঃ ১৯ নং বড়িকান্দি ইউনিয়ন ভবনটি বর্তমানে গনিশাহ (রঃ) মাজার সংলগ্ন থোলস্নাকান্দি গ্রামে অবস্থিত । নবীনগর থেকে সি,এন,জি লঞ্চ এবং ঢাকা ও নরসিংদী থেকে লঞ্চ যোগে আসা যাওয়া করা যায় । ১৯ নং বড়িকান্দি ইউনিয়ন, নবীনগর, ব্রাহ্মণবাড়য়া।
খাতাবাড়িয়ার রহমানিয়া দরবার শরীফ ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় । কাইতলা ইউনিয়ন
কৈবর্তবাড়ী ও মিস্ত্তর বাড়ীর মঠ কৈবর্তবাড়ী ও মিস্ত্তর বাড়ীর মঠ নারই, পূর্ব পাড়া কাইতলা ইউনিয়ন
রাধিকা-নবীনগর মহাসড়কে তিতাস নদীর ব্রীজ রাধিকা-নবীনগর মহাসড়কের উপর নির্মিত এই ব্রীজটি আশুগঞ্জ-ভৈরব সেতুর পর পরই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সবচেয়ে বড় সেতু। ব্রীজ দেখতে এবং বিকেল বেলায় হাওয়া খেতে প্রতি দিন অনেক লোকজন এখানে আসে । ব্রীজটির পূর্ব পাড়ে রয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা বার আউয়ালিয়া দরবেশগনের নামে ধন্য সুপরিচিত বার আউলিয়ার বিল । যার ডাক নাম ‘‘বার আইল্লার বিল’’। তার পশ্চিম পাড়ে রয়েছে ব্রাহ্মণহাতা গ্রাম হয়ে সূর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁর জন্মভূমি শীবপুর । কাইতলা ইউনিয়ন
হযরত পীর সৈয়দ দয়াল বাবা ফিরোজ শাহ্ (রঃ) এর মাজার যাতায়াতঃ নবীনগর উপজেলা সদর বাসস্ট্যান্ড হতে বাস/সিএনজি যোগে জিনদপুর বাজার । ভাড়ার হার - ১৫-২০ টাকা (জনপ্রতি) জিনদপুর, নবীনগর , ব্রাহ্মণবাড়ীয়া
দয়াময় মন্দির যাতায়াতঃ নবীনগর উপজেলা সদর বাসস্ট্যান্ড হতে বাস/সিএনজি যোগে জিনদপুর বাজার । ভাড়ার হার - ১৫-২০ টাকা (জনপ্রতি) কাঁঠালিয়া দয়াময় মন্দির, নবীনগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
সতীদাহ মন্দির উপজেলা সদর হতে নৌকা দিয়ে (ভাড়া ১৫/-) মেরকুটা বাজারে নেমে রিক্সা দিয়ে (২০ টাকা ভাড়া) মন্দিরে আসা যায় । বিদ্যাকুট, মেরকুটা, নবীনগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
রছুল্লাবাদ খান বাড়ির দিঘিরপার উপজেলা সদর থেকে সড়ক পথে। রছুল্লাবাদ উত্তর পারা।
নাটঘর শিবমন্দির উপজেলা হতে লঞ্চ, ট্রলার ও নৌকা যোগে নাটঘর শিবমন্দির ১ বিঘা
তোফায়েল মোহাম্মদ (মেজর) স্মৃতিসৌধ যোগাযোগ :আউলিয়া বাজার হতে ধোরানাল স্কুল তারপর হেটে প্রায় ১০ মিনিটের রাস্তা । লক্ষীপুর গ্রাম, ধোরানাল, মুকুন্দপুর, বিজয়নগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।
হযরত সৈয়দ ‘ম’ আলী (রহঃ) মাজার শরীফ । হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলা হতে সি,এন,জি,অটোরিক্সা এবং যে কোন যানবাহনে চড়ে এই স্থানে আসা যায় । ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলা হতে যে কোন যানবাহনে গুনিয়াউক আসা যায় । গুনিয়াউক ইউনিয়ন ,নাসিরনগর, ব্রাহ্মণবাড়িযা
মহর্ষি মনোমোহন দত্ত আশ্রম ঢাকা থেকে কোম্পানীগঞ্জ হয়ে সাতমোড়া বাজার থেকে মহর্ষি মনোমোহন দত্ত আশ্রম। মহর্ষি মনোমোহন দত্ত আশ্রম, সাতমোড়া, নবীনগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।
হরষপুর দেওয়ান বাড়ী হরষপুর রেলষ্টেশন থেকে অটোরিক্সা যোগে হরষপুর দেওয়ান বাজার (ভাড়া ০৫/-) টাকা ।দেওয়ান বাজার থেকে রিক্সা দিয়ে দেওয়ান সাহেবের বাড়ী যাওয়া যায় । হরষপুর নিদারাবাদ
নাসিরনগর মেদিনী হাওড় অঞ্চল নাসিরনগর উপজেলা
খান নার্সারী চম্পকনগর 3নং ওয়ার্ড জামাল পুর গ্রামে